October 22, 2021, 1:12 pm

অসীমের পথে সসীমের খোঁজেঃ এক মহা বিষধর করোনাময় পৃথিবী ছেড়ে আলোর পথে আমরা হাসবো আগামীতে ইনশাআল্লাহ।

দৈনিক পদ্মা সংবাদ নিউজ ডেস্ক।

কোভিট-১৯ পৃথিবীর ইতিহাসে এটি নতুনভাবে রুপ নিয়েছে কিন্তু ইতিহাস ঘাটলে ২’শ বছর পুরনো দিনের আবির্ভাব হয়েছে যা নাম ছিল “স্প্যানিশ ইনফ্লুয়েঞ্জা” এতে করে মানুষ মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছিল প্রানহানিও কম হয়নি।
সব মিলিয়ে চিন্তা-চেতনার দিকে তাকিয়ে দেখি তবে আসলে আমরা সৃষ্টিকর্তার গজবে আছি আর আল্লাহ মানুষকে সচেতন করেন সেইসঙ্গে পরীক্ষাও করেন ক্ষুধা,ভয়, অভাব দারিদ্রতা,রোগ-ব্যাধি দিয়ে……… মানুষের গুনাহসমূহ তাদের উৎপাদনকৃত বৃক্ষের ফল স্বরূপ…যে যেমন কাজ করবে সে তেমন ফল ভোগ করবে সেটাই স্বাভাবিক, সমগ্র পৃথিবীর এখন একটা ক্রান্তিকাল…আবহমানকাল ধরে হিংসা বিদ্বেষ, অন্যায় অনিয়ম চলে আসছে কারণ মানুষের মধ্যে ভয়ঙ্কর একা মানুষ বাস করে; চেহারায় মানুষ অথচ বিষধর কালনাগিনীর চেয়েও তারা বিষাক্ত! হিংস্র জন্তু যখন সামনে আসে আমরা বুঝি বাঘ-সিংহ, কুমির, হায়না, সাপ কে কেমন ভাবে আক্রমণ করতে পারে কিন্তু মানুষ বহুরূপী! একই অঙ্গে তাদের অনেক রূপ ভিতরে একরকম বাইরে এক রকম!

ক্রমাগত মানুষের অন্যায়-অনিয়ম অত্যাচার সহ্যের সীমানা পেরিয়ে…কোন কিছুই বেশি ভাল নয়। এ পৃথিবীতে সৃষ্টিকর্তা আমাদেরকে প্রেরণ করেছেন জ্ঞান বিবেক-বুদ্ধি দিয়ে, মন দিয়েছেন- হৃদয় দিয়েছেন বোঝার জন্য ও অনুভব করার জন্য কাজেই আমাদের নিজেদের ভালো-মন্দ কৃতকর্মের ভার নিজেদেরকে নিতে হবে। সৃষ্টিকর্তার হুকুম ছাড়া নাকি গাছের পাতাও নড়ে না তবে তিনি আমাদের যেহেতু নিজেদের উপর নিজেদেরকে বুঝেশুনে চলার ক্ষমতা ও স্বাধীনতা দিয়ে কিছুকাল জীবন উপভোগ করার সুযোগ দান করেছেন কাজেই সব কাজের দায়ভার আমাদের নিজের উপরেই বর্তায়। সৃষ্টিকর্তার আদালতে যেখানে তিনি থাকবেন একমাত্র বিচারক নেই বাদী বিবাদী পক্ষ, শুধুই থাকবে আসামি প্রতিটি কাজের পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে হিসাব নেবেন শেষ বিচারে। আমাদের গোপন এবং প্রকাশ্য পাপ সমস্ত লিপিবদ্ধ হয় কাজেই আমরা যা ইচ্ছা তাই করতে পারি না। করোনা মহামারী অকস্মাত্ বিগত সময় ধরে পুরা বিশ্ব জুড়ে আমাদেরকে প্রায় থামিয়ে দিয়েছে, এই ভয়াবহ পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠতে কতদিন সময় লাগবে একমাত্র সৃষ্টিকর্তাই জানেন। তবুও আমরা সৃষ্টিকর্তা প্রদত্ত এই মহামারিকে মোকাবেলা করে সামনের দিকে অগ্রসর হবো আশা স্বপ্ন নিয়ে…
সুখের সময় যেমন দীর্ঘ হয় না কষ্টের সময় ও তেমন
সুখ-দুঃখ জীবনের অংশ এই বিশ্বাস মনে রেখে সৃষ্টিকর্তার উপর ভরসা রেখে তার দয়ায় ক্ষমায় আমরা সফল হবোই। ইনশাআল্লাহ।

এখন আবার জীবন-যাপন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে কিছুটা, লম্বা একটা সময় পরে স্কুল-কলেজ খুলে দিয়েছেন সরকার আসুন আমরা নিজেরা সতর্ক ভাবে চলাফেরা করি, যেসব বিধি নিষেধ আছে যেমন বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করব, হাত ধোয়ার অভ্যাস বজায়
রাখবো এবং যতটা সম্ভব নিরাপদ দূরত্বে থাকার চেষ্টা করব, অহেতুক এক জায়গায় বিনা কারণে লোক সরগরম থেকে বিরত থাকব। আর আসুন এখন থেকে আমরা একটা কথা মনে রাখি-মন্দ কাজ করবো না, মন্দ কিছু শুনবো না- মন্দ কিছু বলবো না…আর এই হোক জীবনের জয়গান!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ:
BengaliEnglish