December 9, 2021, 2:06 am

আইআইটিএফ-২০২১-এ নকশিকাঁথা, জামদানি ও পাটজাত পণ্য প্রদর্শন করবে বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক : আগামীকাল নয়াদিল্লিতে শুরু হতে যাওয়া ৪০তম ভারত আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা (আইআইটিএফ)-২০২১-এ বিভিন্ন বাংলাদেশী পণ্য বিশেষ করে দেশের ঐতিহ্যবাহী নকশিকাঁথা, জামদানি শাড়ি, ঢাকাই মসলিন শাড়ি, পাট ও কাঠের কারুকাজ প্রদর্শিত হবে।.
মেলা সূত্র জানায়, দেশের অর্থনীতি, রপ্তানি সম্ভাবনা, অবকাঠামো, সরবরাহ চেইন, চাহিদা ও দেশের প্রাণোচ্ছ্বল জনমিতির ওপর ফোকাস করার লক্ষ্যে মেলাটি ১৪-২৭ নভেম্বর পর্যন্ত শহরের প্রগতি ময়দানে ‘আত্মনির্ভর ভারত’ থিম নিয়ে সংস্কারকৃত প্রদর্শনী হলে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে ১৯৭৯ সালে সূচনার দ্বিতীয়বার মেলাটি গত বছর অনুষ্ঠিত হতে পারেনি।
ইন্ডিয়া ট্রেড প্রমোশন অর্গানাইজেশন (আইটিপিও) নতুন হল সহ ৭০,০০০ বর্গমিটারের বেশি আয়তনের এলাকায় মেলার আয়োজন করবে। স্থানীয় অংশগ্রহণকারীদের সাথে বাংলাদেশসহ বিশ্বের নয়টি দেশ আইআইটিএফ- ২০২১-এ তাদের পণ্যের সাথে অংশগ্রহণ করছে, যারা অন্যান্য পণ্যের পাশাপাশি তাদের বিভিন্ন রাজ্যের ভারতীয় ঐতিহ্যবাহী পণ্য পণ্য প্রদর্শন করবে।
আইটিপিও’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর এলসি গোয়াল মিডিয়াকে জানান, মেলায় ৩,০০০-এরও বেশি প্রদর্শক, রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রণালয় অংশগ্রহণ করবে, যা বাণিজ্য ও শিল্পের জন্য সোর্সিং, ক্রেতা খোঁজা, ব্যবসায়িক আদান-প্রদান, প্রযুক্তি স্থানান্তরের সুযোগ এবং বাজারে অ্যাক্সেসের জন্য একটি দুর্দান্ত প্ল্যাটফর্ম প্রদান করে। .
ইন্ডিয়া ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড ফেয়ার (আইআইটিএফ) প্রদর্শক ও দর্শনার্থী অংশগ্রহণের দিক থেকে বিশ্বের বৃহত্তম বাণিজ্য মেলাগুলোর অন্যতম।
গোয়াল বলেন, তবে বিদেশী অংশগ্রহণ এবছর কম হবে। এ বছর আফগানিস্তান, বাংলাদেশ, বাহরাইন, কিরগিজস্তন, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, সংযুক্ত আরব আমিরাত, তিউনিসিয়া ও তুরস্ক- এ নয়টি দেশ মেলায় অংশ নিচ্ছে।
এদিকে বাংলাদেশ হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, এবারের মেলায় পণ্য নিয়ে অংশ নিতে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)’র মাধ্যমে পাঁচটি বাংলাদেশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। সেগুলো হলো- বাংলাদেশ লোকশিল্প ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন, প্রাণ এগ্রো লিমিটেড, আধুনিক জামদানি ও থ্রি পিস, আধুনিকা, জেডএম ট্রেডার্স।
বাংলাদেশের স্টলে প্রদর্শিত পণ্যের মধ্যে রয়েছে, নকশিকাঁথা, জামদানি, ঢাকাই মসলিন, মিরপুর কাতান, রাজশাহী সিল্ক, বুটিক ও সব ধরনের শাড়ি, পাটের পণ্য, কাঠের কারুপণ্য
এবং পানীয়, মিষ্টান্ন ও রান্নার আইটেম।
সূত্র জানায়, এ মেলার লক্ষ্য কাভিড -১৯ মহামারীর কারণে বিরাট চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হওয়া ভারতীয় ব্যবসায়িক ভ্রাতৃত্বের অদম্য চেতনা তুলে ধরা।
সূত্র জানায়, বাণিজ্য মেলার কার্যদিবস ১৩-১৮ নভেম্বর এবং সাধারণ জনগণের জন্য ১৯-২৭ নভেম্বর।
তারা বলেন, দর্শনার্থীদের অতিরিক্ত আকর্ষণের মধ্যে রয়েছে অতীতের মতো রাজ্য দিবস উদযাপন, সেমিনার ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ:
BengaliEnglish