February 29, 2024, 1:30 am

আদম সন্তান!

রাশিদা-য়ে আশরার।

আমি মহাকালের গর্ভে ধারণ কৃত আদম সন্তান,
স্থলাভিষিক্ত একবিন্দু পানিতে ও মৃত্তিকার কর্ষণে;
একাল- সেকাল,বহু কাল যাপিত তব অনন্তকাল…
আমি অতীত, বর্তমান ভবিষ্যতে পথে সহযাত্রী;
আমি সব কালের সাক্ষী হয়ে মহাকালের অভিযাত্রী!
আমার জন্ম বৃত্তান্ত শুধু জানেন একান্ত তিনিই;
যিনি প্রথম করেছেন নূরের আলোই আলোকিত;
সৃষ্টিকর্তার নিকট যখন হয়েছিলাম অভিনব উপায়ে জিজ্ঞাসিত!
আরও পড়ুন।
👉প্রথমবার প্রকাশ্যে নুসরতপুত্র ঈশান, আলোর উৎসবে সামিল যশরত
আমি আসতে চাই কিনা এই নশ্বর পৃথিবীতে?
আমার আত্মা টি কি বলেছিল সেটা আমার আর পরবর্তীতে জানার কথা নয় কারণ-
স্রষ্টার তৈরি আমি তো এখন মাটির তৈরি আপাদমস্তক একজন মানুষ নামের পুতুল এইতো ইতিবৃত্ত;
আবার ফিরে যাবো সেই মাটিতেই যেখান থেকে এসেছি পুনরায়!
এই হলো আমারও মানুষ নামের মানুষের জীবন বৃত্তান্ত।

মৃত্যু শুধু এক স্থান থেকে অন্য স্থানে অবস্থান মাত্র-
তারপর সেই মহাকালের জীবনে আবার হবে পুনরুত্থান
শেষ বিচার ও অনন্ত কাল…
নিশ্চয়ই আসতে চেয়েছিলাম এই সুন্দর লীলাভূমে,
আমি সুন্দর বলি কারণ এই পৃথিবী সত্যিই তো সুন্দর;
আমরাই একে বার যোগ্য করে তুলি কখনো আবার
অ বাসযোগ্য!
কারণ সৃষ্টিকর্তা দিয়েছেন কিছুকাল জীবন ভবে কাজ করার ও উপভোগ করার স্বাধীনতা-
নিয়ম কানুন ভালো-মন্দ বিচারের সবকিছুর ক্ষমতা,
অনুভূতি উপলব্ধি, বিবেক বুদ্ধি, হৃদয় অন্তর আত্মা;
সৃষ্টিতত্ত্বের সবকিছুই মানুষের পূর্ণতা ও প্রাপ্তির জায়গা;
এই পৃথিবীটা সুন্দর তাহলে কেন বলব না আমরা?
পালনকর্তা আরও দিয়েছেন মন- হৃদয় আশা প্রেম- ভালোবাসা!
কেন করব না সে শ্রেষ্ঠ মানুষ হয়ে সৃষ্টিকর্তার শুকরিয়া?

দুঃখ কষ্ট,পাওয়া না পাওয়া, বিধি- নিষেধ,ক্ষমা দোয়া;
বিপদ আপদ,রোগ-শোক জরাজীর্ণতা অভাব ক্ষুধা-
মৃত্যু অপমৃত্যু, অকাল মৃত্যু ধনী-দরিদ্র,দারিদ্র্যতা!
অকাল মৃত্যু বলে কিছু নেই, অল্প সময়ে চলে যাওয়া বা প্রত্যাবর্তন সত্যিই দুঃখজনক- সবই তো পুনঃনির্ধারিত;
নিয়তি বা ভাগ্য,সবই তো স্রষ্টার সৃষ্টির পূর্বেই সংগঠিত!

হে সৃষ্টিকর্তা তুমি মহান! হে আল্লাহ পাক তুমিই মহান!হে রহমানির রহিম আদি ও অন্ত তুমি জ্ঞানী প্রজ্ঞাময়!
তুমিই বিরাট সুবিশাল অনন্ত অসীম দয়াময়; অবিনশ্বর শক্তির আধার!
২০২১

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও সংবাদ :