June 22, 2021, 10:32 am

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি আছে কাগজে – কলমে !

মোঃ আব্দুর রহমান অনিক।।
সরকারি নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে গণপরিবহনগুলােতে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি । গাদাগাদি করে পরিবহন করা হচ্ছে যাত্রী । তবে অতিমারি করােনার লাগাম টানতে অর্ধেক আসন নির্দেশনা অনুযায়ী বাড়তি ৬০ শতাংশ ভাড়া তারা ফাঁকা রেখে যাত্রী পরিবহনের কথা থাকলেও ঠিকই আদায় করছেন। গণপরিবহনগুলোতে এ নিয়ে যাত্রীদের মধ্যে দেখা গেছে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ । চলমান লকডাউনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার শর্তে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে সরকার । কিন্তু সেই শর্ত কোথাও পালন করতে দেখা যাচ্ছে না । এমনকি দাঁড়িয়েও যাত্রী পরিবহন করে যাচ্ছে । সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা , হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখা কিংবা মাস্ক পরিধান করতে অনীহা দেখা গেছে চালক ও হেলপারের মধ্যে । দীর্ঘদিন ধরে চলমান দুই জেলার মটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের কোন্দলের কারণে যাত্রীদের ভোগান্তির শিকার চলমান রয়েছে । সেই সাথে গতকাল দেখা গেছে যশোর থেকে ঝিনাইদাহ জেলার কালিগঞ্জে পর্যন্ত দুই সিটের ভাড়া ১৪০ টাকা করে নিয়া হয়েছে ।আজ কালিগঞ্জ থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলার হাসাদা পর্যন্ত দুই সিটের ভাড়া নিয়েছে ৮০ করে ১৬০ টাকা। আবার হাসাদহ থেকে দর্শনা পর্যন্ত দুই সিটের ভাড়া ৪০ করে ৮০ টাকা আর
চুয়াডাঙ্গা পর্যন্ত দুই সিটের ভাড়া ১৬০ টাকা নেওয়া হয়েছে।
কয়েকটি স্পটে সরেজমিনে ঘুরে গণপরিবহণের এমন চিত্র দেখা গেছে । গত ২৩ মে দূরপাল্লার বাস চলাচলের অনুমতি দেওয়ার পর বেশ কিছু নির্দেশনা জারি করে বাস মালিক সমিতি । নির্দেশনাগুলাে হচ্ছে- মাস্ক ছাড়া কোনও যাত্রী গাড়িতে ওঠানাে যাবে না । চালক , সুপারভাইজার , হেলপার এবং টিকিট বিক্রিতে নিয়ােজিতরাও মাস্ক পরবে । তাদের হাত ধােয়ার জন্য পর্যাপ্ত সাবান – পানি , হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে । বিভিন্ন সংলগ্ন স্থানে একটি বাস এসে থামলে দেখা যায় , ঘেঁষাঘেঁষি করে যাত্রীরা দাঁড়িয়ে আছেন । নিয়ম না মেনে কেন চলছেন , জানতে চাইলে গাড়িটির সুপারভাইজার বলেন , ‘ বারবার মানা করার পরও যাত্রীরা ঠেলাঠেলি করে গাড়িতে উঠছেন । আমরা কোনােভাবেই মানাতে পারছিন তাদেরকে । স্বাস্থ্যবিধি নেই আবার ভাড়াও বেশি নিচ্ছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন , যাত্রীর চাপ বেশি হওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি মানা অনেকক্ষেত্রে সম্ভব হচ্ছে না । ‘ মোঃ উদয় হোসেন নামের একজন যাত্রী দৈনিক পদ্মা সংবাদ কে জানান , কিছু কিছু বাসে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীদের গন্তব্যে যেতে দেখা গেলেও অধিকাংশ বাসে গাদাগাদি করে যাত্রীদের চলাচল করতে দেখা গেছে । অনেকের মুখে মাস্ক পরতে দেখা যায়নি । স্বাস্থ্যবিধি মানাতে বাস শ্রমিকদের মধ্যে দেখা যায়নি কোন তৎপরতা । শুধু ক্যামেরা দেখলেই শুরু হয় মাস্ক পড়ার তােড়জোড় । এদিকে , যাত্রীদের অভিযােগ , বাসে অতিরিক্ত যাত্রী উঠানাে হলেও সঙ্গে আদায় করা হয় অতিরিক্ত ভাড়াও । পরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি না মানার বিষয়ে চালক ও শ্রমিকদের অভিযােগ , বাসে ওঠার ক্ষেত্রে যাত্রীরা স্বাস্থ্যবিধির তােয়াক্কা করছেন না । মাস্ক ব্যবহারের কথা বললে অনেকে খারাপ ব্যবহার করেন । এছাড়া দুই সিটে একজন বসার নির্দেশনা থাকলেও যাত্রীরা তাও মানছেন না । একাধিক যাত্রীর অভিযােগ , বাসে চালক ও শ্রমিকরা বাড়তি ভাড়ায় অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন করছেন । চালক ও শ্রমিকরা নিজেরাই মাস্ক পরেন না । তারা স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে গুরুত্ব না দিলে সাধারণ যাত্রীরা কীভাবে মানবেন ।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ:
BengaliEnglish