July 1, 2022, 1:41 pm

নারায়ণগঞ্জ হতে ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক।

ভোলায় গার্মেন্টসকর্মী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী “মোঃ আমজাদ হোসেন” কে গুরুত্বপূর্ণ আলামতসহ নারায়ণগঞ্জ জেলার গোদনাইল এলাকা হতে র‌্যাব-১১ কর্তৃক গ্রেফতার।

গত পহেলা মে ২০২২ ইং তারিখে ভোলা জেলার সদর থানার রাজাপুর এলাকায় গার্মেন্টেসকর্মী গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে ভোলা জেলার সদর থানায় একটি গণধর্ষণ মামলা দায়ের করে, যার মামলা নম্বর- ১৫, তারিখ ০৮/০৫/২০২২ ইং। উক্ত ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ আকারে প্রচারিত হয় যা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে।

উক্ত গণধর্ষণের ঘটনায় ভোলা সদর থানার অধিযাচন পত্রের প্রেক্ষিতে আসামীদের সনাক্তকরণ ও গ্রেফতারের নিমিত্তে র‌্যাব-১১, সিপিসি-১ এর একটি গোয়েন্দা দল ছায়া তদন্ত শুরু করে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২০ জুন ২০২২ তারিখ র‌্যাব-১১, সিপিসি-১ অভিযান পরিচালনা করে উক্ত গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী মোঃ আমজাদ হোসেন @ আরিয়ান (২৫), পিতা-রুহুল আমিন চৌকিদার, গ্রাম-চরমনসা, থানা+জেলা-ভোলা সদর মডেল’কে নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইল এলাকা হতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এ সময় আসামীর হেফাজত হতে ভিকটিমের মোবাইল ফোন ও ছিনতাইকৃত টাকা উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ ও এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ০১/০৫/২০২২ তারিখে ভিকটিম তার নিজ বিবাহ এবং ঈদ উপলক্ষে ঢাকা থেকে নিজ বাড়ীর উদ্দেশ্যে লঞ্চযোগে ইলিশা ঘাটে পৌছায়। ইলিশা ঘাট হতে অপেক্ষারত হবু স্বামী এবং ভিকটিম নিজে অটোরিক্সা যোগে নিজ বাড়ীর উদ্দ্যেশে রওনা করেন। কিছুদূর যাওয়ার পর গ্রেফতারকৃত আসামী মোঃ আমজাদ হোসেন @ আরিয়ান (২৫) সহ আরো দুইজন আসামী তাদের অটোরিক্সাটির গতিরোধ করে। একপর্যায়ে তাদের দু’জনকে নামিয়ে একটি নির্মানাধীন ভবনে নিয়ে ভিকটিমের হবু স্বামীকে মারধর করে একটি রুমে বেঁধে রাখে এবং ভিকটিমকে অন্য রুমে নিয়ে গিয়ে জোর পূর্বক তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে তিনজন মিলে ধর্ষণ করে। এ সময় ধর্ষকেরা ভিকটিমের সাথে থাকা মোবাইল ফোন ও নগদ অর্থ ছিনিয়ে নেয়। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত গণধষর্ণের বিষয়টি স্বীকার করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীকে ভোলা সদর মডেল থানার তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরও সংবাদ :