October 1, 2022, 3:19 pm

পণ্যের মান, ডিজাইন ও দক্ষতা দিয়ে বাজার দখল করতে হবে — বাণিজ্যমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক :
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, প্লাস্টিক শিল্প বাংলাদেশের জন্য একটি সম্ভাবনাময় খাত। বিশ্বে এ পণ্যের বিশাল বাজার রয়েছে। পণ্যের মান, ডিজাইন ও দক্ষতা দিয়ে বাজার দখল করতে হবে। বিশ্বে দিন দিন প্লাস্টিক পণ্যের চাহিদা বাড়ছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার প্লাস্টিক শিল্পের উন্নয়নে সহায়তা প্রদান করে যাচ্ছে। ব্যবসায়ীদেরও এগিয়ে আসতে হবে। বিশ্বের প্লাস্টিক পণ্যের চাহিদা মিটাতে সবাইকে তৈরি হতে হবে। প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই। এ ইনস্টটিউট দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি। একসময় বাংলাদেশ তৈরিপোশাক শিল্পের চাহিদা মিটাতে বিদেশ থেকে প্লাস্টিক পণ্য আমদানি করতো। আজ বাংলাদেশ এ সকল প্লাস্টিক পণ্যের চাহিদা পূরণ করে বিদেশে রপ্তানি করছে। প্লাস্টিক পণ্যকে তৈরি পোশাকের মতো গুরুত্বপূর্ণ রপ্তানি পণ্যে পরিণত করতে সংশ্লিষ্ট সকলকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে।
বাণিজ্যমন্ত্রী আজ ঢাকার দক্ষিণ কেরানিগঞ্জ পানগাঁও কনটেইনার পোর্ট রোডে বাংলাদেশ প্লাস্টিক গুডস ম্যান্যুফেকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অভ্ প্লাস্টিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (বিআইপিইটি) যৌথভাবে আয়োজিত বিআইপিইটি-এর নতুন ক্যাম্পাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
লিস্ট ডেভেলপড্ কান্ট্রিজ (এলডিসি) গ্রাজুয়েশনের কথা উল্লেখ করে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সামনে আমাদের জন্য আলোকিত পথ অপেক্ষা করছে, এগিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে। এজন্য যোগ্যতা ও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। সরকার ইতিমধ্যে ভূটানের সাথে প্রেফারেন্সিয়াল ট্রেড এগ্রিমেন্ট (পিটিএ) স্বাক্ষর করেছে। নেপালের সাথে অল্প সময়ের মধ্যে চুক্তি হবে। আরো অনেক দেশের সাথে আলোচনা চলছে। সাময়িকভাবে এটা আমাদের জন্য লাভজনক মনে না হলেও দীর্ঘ মেয়াদে লাভজনক হবে। এজন্য সবাইকে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ প্লাস্টিক গুডস ম্যান্যুফেকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মোঃ জসিম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্লাস্টিক গুডস ম্যান্যুফেকচারার্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশনের ভাইস-প্রেসিডেন্ট গিয়াস উদ্দিন আহমেদ, এসোসিয়েশনের সাবেক প্রেসিডেন্ট শামীম আহমেদ, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান আহসান চৌধুরী এবং এসোসিয়েশনের সাবেক প্রেসিডেন্ট এস এম কামাল উদ্দিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরও সংবাদ :