October 1, 2022, 1:24 pm

বৈশাখীতে দেশের প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের সংবাদ উপস্থাপিকা

নোয়াখালী প্রতিনিধি।
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ও আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে বৈশাখী টেলিভিশন দেশে এই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের সংবাদ উপস্থাপিকা নিয়োগ দিয়েছে। নিয়োগপ্রাপ্ত সংবাদ উপস্থাপিকা তাসনুভা আনান শিশির আগামী ৮মার্চ আন্তজার্তিক নারী দিবস উপলক্ষে প্রথম সংবাদ বুলেটিন উপস্থাপন করবেন।
তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ এ সমাজেরই অংশ। দেশে এই প্রথম তৃতীয় লিঙ্গের কোন মানুষকে সামাজিক স্বীকৃতি দিয়ে সংবাদ উপস্থাপিকা হিসেবে নিয়োগ প্রদান করে অবহেলিত জনগোষ্ঠীর সামাজিক স্বীকৃতির দ্বার উন্মোচন করার কারণে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বৈশাখী টেলিভিশন ভূয়সী প্রশংসায় ভাসছেন।
বৈশাখী টেলিভিশন সূত্রে জানানো হয়েছে, বৈষম্যহীন রাষ্ট্র ও সমাজ গঠনই ছিলো বাংলাদেশের স্বাধীনতার মূলমন্ত্র। অথচ স্বাধীনতার ৫০ বছরে গর্ব করার মতো অনেক অর্জন হলেও বৈষম্যহীন সমাজ ও রাষ্ট্র গঠন আদৌ সম্ভব হয়নি। যার প্রেক্ষিতে দেশে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠী আজো অবহেলিত। সমাজে এদের চিরাচরিতভাবে হিজড়া বলে জানে। জন্মগতভাবে এই শারীরিক সীমাবদ্ধতা নিয়ে যারা আমাদের সমাজে ভূমিষ্ঠ হন তাদের পারিবারিক, সামাজিক এমনকি রাষ্ট্রীয়ভাবে বঞ্চনা ও অবহেলার স্বীকার হবার অনাকাঙ্ক্ষিত বাস্তবতাটি আমাদের চিরচেনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার এই অবহেলিত নাগরিকদের মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় নানা উদ্যোগ নিয়েছেন। ভোটার তালিকায় তারা এখন নারী বা পুরুষ হিসেবে নয় সরাসরি হিজড়া পরিচয়েও নিজেদের নাম নিবন্ধন করার অধিকার পেয়েছেন। বিপুল সংখ্যক হিজড়াকে সরকার ভাতাও দিচ্ছে। হিজড়াদের তথা তৃতীয় লিঙ্গের ধারাবাহিক ও স্থায়ী উন্নয়নের ধারা নিশ্চিতে দেশে এই প্রথম আমরা বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। আশাকরছি আগামীতে সবার মানসিকতার পরিবর্তন হবে। যা অত্যন্ত জরুরি।
চ্যানেলটির জনসংযোগ কর্মকর্তা দুলাল খান গণমাধ্যমকে বলেন, বৈশাখী টেলিভিশন স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর এই বছর, স্বাধীনতার মাস “মার্চে” আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপনের প্রাক্কালে আমাদের চ্যানেলের সংবাদে এবং নাটকে দুইজন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে যুক্ত করেছি। দেশের মানুষ এই প্রথম কোনও পেশাদার সংবাদ বুলেটিনে খবর পাঠ করতে দেখবেন একজন ট্রান্সজেন্ডার নারীকে। যা স্বাধীনতার ৫০ বছরে দেশে আগে কখনো ঘটেনি। এরমধ্য দিয়ে দেশে এক নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপনে বৈশাখী টেলিভিশনের ঐতিহাসিক উদ্যোগের সহযাত্রী হয়ে গেলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরও সংবাদ :