February 1, 2023, 5:50 pm

সাত বছরে সরকারি খরচে ১৯১৮ জন হজে গেছেন

গত সাত বছরে সরকারি খরচে এক হাজার ৯১৮ জনকে হজে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। রোববার (২২ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে আওয়ামী লীগের দলীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্ন-উত্তর টেবিলে উপস্থাপিত হয়।

ফরিদুল হক খান বলেন, ২০১৪ সাল থেকে সরকার নির্দিষ্ট সংখ্যক ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে ঘোষিত সর্বনিম্ন প্যাকেজমূল্যে সরকারি অর্থে হজ পালনের উদ্দেশ্যে সৌদি আরব পাঠানোর কার্যক্রম শুরু করে। এর মধ্যে ২০২০ ও ২০২১ সালে করোনার কারণে কাউকে হজে পাঠানো হয়নি।

তিনি জানান, সরকারি খরচে গত ৭ বছরে ১ হাজার ৯১৮ জনকে হজে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ২০১৪ সালে ১২৫, ২০১৫ সালে ২৬৮, ২০১৬ সালে ২৮৩, ২০১৭ সালে ৩৩৪, ২০১৮ সালে ৩৪০, ২০১৯ সালে ৩১৪ ও ২০২২ সালে ২৫৪ জন।

সরকারি দলের সদস্য মোহাম্মদ হাবিব হাসানের অপর এক প্রশ্নের জবাবে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাকাত ফান্ডের বর্তমান স্থিতি ৪ কোটি ৯৭ লাখ ২১ হাজার ৩২৭ টাকা।

এদিকে গত ৯ জানুয়ারি সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের হজ চুক্তি সম্পন্ন হয়। এতে পূর্বনির্ধারিত পূর্ণ কোটা পেয়েছে বাংলাদেশ। চুক্তি অনুযায়ী, ২০২৩ সালে বাংলাদেশ থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন পবিত্র হজ পালন করতে পারবেন।

আগামী মে মাসের শেষ সপ্তাহে উড়বে হজের প্রথম ফ্লাইট। সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় হাজিদের বিড়ম্বনা লাঘবে সৌদি সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব)।

হজের অংশ হিসেবে ৭ থেকে ১২ জিলহজ মক্কা থেকে মিনা, আরাফাত ও মুজদালিফায় অবস্থান করতে হয় মুসল্লিদের। তবে সেখানে যাতায়াত, তাঁবু ও খাবারসহ নানা বিষয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় অবস্থানকারীদের। এই কষ্ট লাঘবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সৌদি সরকারের প্রতি আহ্বান হাবের।

অন্যদিকে সৌদি হজ ও ওমরা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এবার প্রায় ৩০ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান হজ পালন করবেন। এর মধ্যে বহির্বিশ্ব থেকে প্রায় ২০ লাখ মুসলমান হজে অংশ নেবেন। এ ছাড়া স্থানীয় পর্যায়ে ১০ লাখের মতো মুসলমান হজে অংশ নেবেন।

জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে ২৮ জুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরও সংবাদ :