প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আর্থিক প্রণোদনা উপহার পেলেন খুলনা বিভাগের ৩৩৮ সাংবাদিক

0
14

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার আবেদক ২৮জন সাংবাদিকসহ খুলনা বিভাগের ৩৩৮ জন সংবাদিকের টাকার চেক প্রদান করেছেন তথ্যমন্ত্রী। বুধবার (২৯ জুলাই) যশোরে আনুষ্ঠানিকভাবে এ চেক প্রদান করা হয়েছে। এ সময় তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, করোনাকালে গণমাধ্যমকর্মীরা জীবনকে হাতের মুঠোয় নিয়ে কাজ করছেন। অনেকে আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যুবরণও করেছেন। করোনাকালে গণমাধ্যমের কোনো কোনো মালিক সংকটে পড়েছেন। আবার কেউ কেউ লাভবান হচ্ছেন। বিজ্ঞাপন কিছু কমলেও তাদের অন্যান্য খরচ কমেছে। এ অবস্থায় কর্মী-মালিক সমন্বয় করে সংকট ভাগাভাগি করে নিতে হবে।
বুধবার দুপুরে যশোর সার্কিট হাউজে খুলনা বিভাগের সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর আর্থিক সহায়তার চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, তিনি বলেন, রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ গণমাধ্যম। ফলে সাংবাদিকদের সঙ্গে নিয়েই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে কাজ করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ খুলনা বিভাগের ৯ জেলার সাংবাদিক নেতাদের হাতে ৩৩৮ জন সাংবাদিকের প্রধানমন্ত্রীর সহায়তার চেক হস্তান্তর করেন। এর মধ্যে যশোরে ৪৮ জন, খুলনায় ১১৪ জন, মাগুরায় ২৭ জন, মেহেরপুরে ২৫ জন, সাতক্ষীরায় ৩৪ জন, চুয়াডাঙ্গায় ২৮ জন, ঝিনাইদহে ২৯ জন, নড়াইলে ২৭ জন ও বাগেরহাটে ৬ জন রয়েছেন। যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাজেদ রহমান বকুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মানুষের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মহামারীকালে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি দিনও বসে নেই। প্রতিদিনই তিনি কাজ করছেন। অথচ বিএনপির নেতারা শুধু টেলিভিশখনে উঁকি দিয়ে মুখ দেখাচ্ছেন। তারা মানুষের পাশে নেই। কেউ মাঠে নেই।
তিনি বলেন, করোনাকালে পুলিশ বাহিনী বাংলাদেশের জন্য উদাহরণ তৈরি করেছে। এ ছাড়া সেনাবাহিনী, ডাক্তার, নার্স মহামারীতে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে কাজ করছে। তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই। অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, করোনাকালে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। চার হাজার সাংবাদিককে আর্থিক সহায়তা দেয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে আগামীতেও দেয়া হবে। সরকার সবার জন্য। এ জন্য যারা আওয়ামী লীগের বিপক্ষে একদিন কথা না বলে থাকতে পারেন না তাদেরকেও এ সহায়তা দেয়া হচ্ছে। আগামীতেও এদেরকে দেয়া হবে। যারা ইউনিয়নের সদস্য না তারাও সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে আবেদন করলে সহায়তা দেয়া হবে।

উল্লেখ্য, চুয়াডাঙ্গার ২৮ জন সংবাদিকের চেক গ্রহণ করেন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজীব হাসান কচি।
সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টে আবেদন করলে সহায়তা প্রদানের প্রতিশ্রুতি ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here