ইউরোপের বেশির ভাগ দেশে ফের করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি

0
7

অনলাইন ডেস্ক।

ফের করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ইউরোপের বেশিরভাগ দেশেই জারি করা হয়েছে রাত্রিকালীন কারফিউ। করোনার দ্বিতীয় ধাপের সংক্রমণ ঠেকাতে দ্বিতীয়বারের মতো দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছে ফ্রান্স। ৩০ অক্টোর থেকে শুরু হয়ে নভেম্বর পর্যন্ত এ লকডাউন কার্যকর থাকবে। গতকাল বুধবার রাতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন এ ঘোষণা দেন।

ঘোষণায় ম্যাক্রন বলেন, প্রথম দফার থেকে দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণের হার আরও বিস্তৃত হওয়ায় তিনি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ সময় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাসা থেকে বের হতে পারবে না। বন্ধ থাকবে পানশালা, রেস্তোরাসহ বিভিন্ন বিনোদনমূলক স্থান। তবে, খোলা থাকবে স্কুল ও কারখানা।

আগেই ফ্রান্সের সাড়ে চার কোটি মানুষকে রাত্রিকালীন কারফিউর আওতায় রাখা হয়। গত এপ্রিলের পর মঙ্গলবার দেশটিতে করোনায় সর্বোচ্চ ৫২৭ জন মারা গেছে।
ফ্রান্সের পাশাপাশি ইউরোপের আরেক দেশ জার্মানিতেও দ্বিতীয় দফায় লকডাউনের পরিকল্পনা করা হয়েছে। ২ নভেম্বর থেকে মাসজুড়ে বন্ধ থাকবে দেশটির সিনেমা হল, থিয়েটার, জিম, পানশালা ও রেস্তোরাঁ।

নতুন লকডাউনে স্কুল খোলা থাকলেও দুই পরিবারের মধ্যে দেখা-সাক্ষাৎ সীমিত করা হবে।
এরইমধ্যে, করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে ইউরোপের বেশিরভাগ দেশে জারি হয়েছে রাত্রিকালীন কারফিউ।

এদিকে, সারা বিশ্বে করোনা শনাক্তে আগের সব সংখ্যা ছাড়িয়েছে। বিশ্বজুড়ে একদিনে সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ ১৬ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত। বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্তের সংখ্যা ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৮ হাজার ৮৪৫ জনে দাঁড়িয়েছে।

আর করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৬২ জন। তবে, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ২৭ লাখ ২৪ হাজার ৪৭৭ জন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here