আগের ব্যর্থতা কাটাতে চান সোহেল রানারা!

0
8

অনলাইন ডেস্ক।।
সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী মাসের মাঝামাঝিতে ফের আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরছে বাংলাদেশ জাতীয় দল। ফিফা উইন্ডো অনুযায়ী আগামী ১৩ ও ১৭ নভেম্বর নেপাল জাতীয় দলের বিপক্ষে দু’টি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচ খেলবে লাল-সবুজরা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচ দু’টি। ম্যাচগুলোকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে প্রস্তুতি ক্যাম্প শুরু করেছেন রায়হান হাসান-সোহেল রানারা। জাতীয় দলের ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে বর্তমানে লন্ডনে অবস্থান করায় স্থানীয় কোচদের অধীনেই নিজেদের প্রস্তুত করছেন তারা। তবে প্রীতি ম্যাচে মাঠে নামার আগে ঘুরেফিরে আলোচনায় আসছে নেপালের বিপক্ষে শেষ দুই ম্যাচে বাংলাদেশের হারের প্রসঙ্গ। কিন্তু এটা নিয়ে ভাবতে নারাজ জাতীয় দলের মিডফিল্ডার সোহেল রানা। তার লক্ষ্য শেষ দুই ম্যাচের ভুলগুলো শুধরে ব্যর্থতা কাটিয়ে ওঠা। নেপালের চেয়ে বাংলাদেশকে ‘ভালো দল’ বলে দাবি করেন তিনি। পাশাপাশি আসন্ন দুই প্রীতি ম্যাচে জয়েরও প্রতিশ্রুতি দেন সোহেল রানা। মঙ্গলবার কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে চতুর্থ দিনের অনুশীলন শেষে এই প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

২০১৩ ও ২০১৮ সালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের দুই আসরে নেপালের বিপক্ষে হেরেছিল বাংলাদেশ। ওই দু’টি হারই ছিল ২-০ ব্যবধানের। গত বছর নেপাল সাউথ এশিয়ান (এসএ) গেমসে সর্বশেষ দেখায়ও বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ১-০ গোলের হার ছিল নেপালের সঙ্গে। প্রসঙ্গ তুলতে সোহেল রানা জানান, অতীতের ভুলগুলো শুধরে নিয়ে জয় পাওয়ার লক্ষ্যে প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। দলীয়ভাবে নেপালকে শক্তিশালী মানলেও এই মিডফিল্ডার বলেন, প্রতিপক্ষের দুর্বলতা জানা আছে তাদের।

২৫ বছর বয়সী সোহেলের কথায়,‘বাংলাদেশ ও নেপালের দল তুলনা করলে অবশ্যই আমরা ভালো। কিছু ছোটখাটো ভুলের জন্য আমরা ম্যাচে হেরে যাই। কিন্তু মান বিচার করলে আমরা ওদের চেয়ে ভালো দল। গত দু’টি ম্যাচে ও বিগত দিনগুলোয় যে ভুলগুলো করেছি, সামনের খেলাগুলাতে ওই ভূল সংশোধন করে নিতে পারব বলে আশাকরি। আসন্ন দুই প্রীতি ম্যাচ অবশ্যই জিততে চাই। সে লক্ষ্যেই আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

তিনি বলেন,‘দল হিসেবে নেপাল ভালো, কিন্তু ব্যক্তিগত নৈপুণ্যনির্ভর খেলোয়াড়ের দিক চিন্তা করলে আমরা ওদের চেয়ে ভালো। দলগতভাবে তারা শক্তিশালী, কিন্তু তাদের দুর্বল জায়গাগুলোও আমাদের জানা আছে। সামনের দুই ম্যাচে আমাদের চিন্তা ভাবনা আছে কিভাবে আমরা ফিটনেস ডাশ রেখে ভালোভাবে খেলব। যাতে ব্যর্থতা কাটিয়ে ভালো ফলাফল পেতে পারি। লক্ষ্যপূরণে কঠোর পরিশ্রম করছি আমরা। আশাকরি, দু’ম্যাচেই ভালো ফলাফল করে মাঠ ছাড়তে পারব।’মঙ্গলবার চতুর্থ দিনের অনুশীলনেও কাজ হয়েছে ফিটনেস নিয়ে। সোহেল রানা জানান, দীর্ঘ সময় পর অনুশীলনে ফেরায় ফিটনেসের দিকটায় জোর দেয়া হচ্ছে বেশি।
সোহেল আরো বলেন,‘আমরা প্রথম সপ্তাহে ফিজিক-এর ওপর বেশি নজর দিয়েছি। কোচ আমাদের ফিটনেসের ওপর জোর দিচ্ছেন। যেহেতু আমরা লম্বা সময় খেলার বাইরে ছিলামতাই ক্যাম্পের প্রথম সপ্তাহে ফিটনেসে বেশিরভাগ, পাশাপাশি রানিং, বলেও ট্রেনিং করাচ্ছেন কোচ। সোমবার জিমে কিছু ট্রেনিং ছিল। আজ (মঙ্গলবার) আবার ফিটনেসের ওপর বেশি কাজ করিয়েছেন কোচ। প্রথমে বল নিয়ে ট্রেনিং হয়েছে ৪০ মিনিটের মতো। এরপর এনডুরেন্স বাড়ানোর জন্য ট্রেনিং হয়েছে।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here