February 29, 2024, 2:30 am

কাল স্বাগতিক মালদ্বীপের মুখোমুখি হচ্ছে অনুপ্রানীত বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক : সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবলে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে আগামীকাল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মালদ্বীপের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে অনুপ্রানীত বাংলাদেশ। মালদ্বীপের রাজধানী মালের ন্যাশনাল ফুটবল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি।
বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বেসরকারী স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল টি স্পোর্টস।
এখনো পর্যন্ত টুর্নামেন্টে বেশ ভাল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আগের দুই ম্যাচের একটিতে জয় ও আরেকটিতে ড্র করে এখনো পর্যন্ত অবস্থান করছে পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় স্থানে। সোমবার অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ম্যাচে শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে ১-০ গোলে পিছিয়ে পড়ার পরও ১০ জনের দল নিয়ে সমতায় ফিরতে সক্ষম হয় বেঙ্গল টাইগাররা। ম্যাচের ৭৩ মিনিটে বাংলাদেশের হয়ে সমতাসুচক গোলটি করেছেন ইয়াসিন আরাফাত। ফলে মুল্যবান এক পয়েন্ট যুক্ত হয় দলীয় সংগ্রহশালায়। একই রকম আত্মবিশ্বাস নিয়ে কাল স্বাগতিকদের মোকাবেলা করতে চায় লাল সবুজ জার্সির দলটি।
অন্তবতীকালীন প্রধান কোচ অস্কার ব্রুজনও চান স্বাগতিকদের বিপক্ষে কাল শিষ্যদের একই মানের পারফর্মেন্স। এই মুহুর্তে পয়েন্ট তালিকার সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবারের ম্যাচে তারা যদি মালদ্বীপকে হারাতে পারে, তাহলে অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাবে ফাইনাল।
পরের ম্যাচে বিশ্বনাথ ঘোষ ও রাকিব হোসেন বাংলাদেশের হয়ে খেলতে পারবেন না। তবে এতে দলে কোন সমস্যা হবেনা বলে মনে করেন মতিন মিয়া। কারণ দলে অনেক বিকল্প খেলোয়াড় রয়েছে।
দলের জন্য সুখবর হচ্ছে, মলদ্বীপের বিপক্ষে এই ম্যাচের আগেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন ডিফেন্ডার রেজাউল করিম এবং গতকাল তিনি দলীয় অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন।
টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে শ্রীলংকাকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। আজ ম্যাচপুর্ব সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া বলেছেন মালদ্বীপের বিপক্ষে পয়েন্ট সংগ্রহ ছাড়া অন্য কিছু ভাবছেন না।
তিনি বলেন,‘ আমরা সবাই জানি মালদ্বীপের জন্য এটি খুবই গুরুত্বপুর্ন ম্যাচ। তবে আমি মালদ্বীপের কথা ভাবছি না। আমি নিজ দলের বিষয়েই বেশী মনোযোগ দিতে চাই। আমরা জানি এটি মালদ্বিপের হোম ম্যাচ। স্থানীয়দের কাছ থেকেও তারা সমর্থন পাবে। তবে আমাদের দল এটি পরোয়া করে না। আমরা সবাই ম্যাচটি থেকে ভাল কিছু আদায়ের চিন্তা করছি। আমরা পরবর্তী ম্যাচের দিকেই বেশী মনোযোগি। প্রতিপক্ষ কারা সেটি বড় কথা নয়।’
এক প্রশ্নের জবাবে জামাল বলেন, স্টেডিয়ামে সমর্থকেদর উপস্থিতি সব সময় দারুন ব্যাপার। বিশেষ করে তাদের উৎসাহ মুলক চিৎকার দলকে অনুপ্রানীত করে।
এদিকে প্রথম ম্যাচে নেপালের কাছে হারের পর আসন্ন ম্যাচটি মালদ্বীপের জন্য খুবই গুরুত্বপুর্ন হয়ে উঠেছে। নেপালের বিপক্ষে মালদ্বীপ আধিপত্য বিস্তার করে খেললেও নেপালের গোল রক্ষক দৃঢ়তার সঙ্গে তাদের প্রতিহত করেছে। এরপর বদলী হিসেবে মাঠে নেমে নেপালের চেহারা পাল্টে দেন মানিষ ডাঙ্গি। ৮৬ মিনিটে তার দেয়া গোলে পুর্ন তিন পয়েন্ট লাভ করে হিমালয় কন্যারা।
ম্যাচে স্বাগতিকরা ৬২ শতাংশ সময় বল দখলে রাখলেও শেষ মুহুর্তে হজম করা গোলটি আর পরিশোধ করতে পারেনি। কালকের ম্যাচে জয় নিয়ে তাই নতুন করে আত্মবিশ্বাস ফিরে পেতে চায় মালদ্বীপ। এ জন্য বাংলাদেশের বিপক্ষে কাল বাড়তি দক্ষতা প্রদর্শন করতে হবে দ্বীপদেশটির। অন্যথায় ফাইনালে খেলার জন্য তাদেরকে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে।
বাংলাদেশ দল: শহিদুল আলম, আনিসুর রহমান, আশরাফুল ইসলাম রানা, রহমত মিয়া, তপু বর্মন, রিয়াদুল হাসান, ইয়াসিন আরাফাত, রেজাউল করিম, সোহেল রানা, সাদ উদ্দিন, বিপলু আহমেদ, জামাল ভুঁইয়া, সুমন রেজা, তারিক রায়হান কাজী, মাহবুবুর রহমান, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, মতিন মিয়া, মোহাম্মদ আতিকুর রহমান ফাহাদ, জুয়েল রানা, টুটুল হোসেন বাদশাহ ও মোহাম্মদ হৃদয়।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও সংবাদ :