August 11, 2022, 9:36 pm

প্রতীকী আমি!

রাশিদা- য়ে আশরার।

প্রাচীন এক বটবৃক্ষ ঠায় দাঁড়িয়ে আছে
কত যুগ, গতকালের নীরব সাক্ষী হয়ে-
ওর ছায়ায় বসে তা ভাবনার অবকাশ পাই,
সে ডালপালা পাতা দুলিয়ে সিক্ত করে
অবসন্ন শরীর…
কখন যে তন্দ্রাচ্ছন্ন হয়ে পড়ি
আমাকে নিয়ে যায় স্বপ্ন লোকে;
সেখানে জীবন পৃথিবীর মতো সীমাবদ্ধ নয়-
মুক্ত ও অসীম!

আমি নদীকে ভালোবাসি…
সে আমাকে নিয়ে যায় সাগরের তলদেশে;
ওখানে জীবন পৃথিবীর মতো যন্ত্রণাদায়ক নয়,
নির্মল আনন্দঘন ও বৈচিত্র্যময়;
কত জলজ প্রাণী বসবাস করে বসবাস করে
সুখের বেসাতি সাজিয়ে সাগরের তলদেশে!

আমি ফুলকে ভালোবাসি
কারণ ও আমার মনের কথা বোঝে-
মানুষের মতো নয়,
চাওয়া-পাওয়ার ব্যাথা বেদনার ভাষা বুঝতে পারে।
নিয়ে যায় নীল দিগন্তে-
যেখানে সবুজ বনানী ঘেরা গাছগুলো
সুখ সারিবদ্ধ, মেঘের কোল ঘেঁষে!

আশা আমাকে বাঁচিয়ে রাখে স্বপ্নকে সারথি করে
মেঘের ভেলায় চড়ে নিয়ে যায় পরলোকে;
যেখানে থাকতে হবে অনাদি অনন্তকাল…
অবশেষে পৌঁছে যাব গন্তব্যে- যবনিকা পর!

কাব্যগ্রন্থ-অস্থির সময়ে ক্লান্ত পাখিরা
২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরও সংবাদ :