April 14, 2024, 11:05 pm

স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর ফাঁসির আদেশ

বাগেরহাটের কচুয়ায় স্ত্রী হত্যার দায়ে বাসুদেব ওরফে বাপ্পি কর্মকার নামে এক ব্যক্তিকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সাথে আসামীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। এ মামলার অন্য চার আসামীকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।
বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বাগেরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল-১ এর বিচারক এস এম সাইফুল ইসলাম আসমাীর উপস্থিতিতে এ রায় দেন। মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রাপ্ত বাসুদেব ওরফে বাপ্পি কর্মকার কচুয়া উপজেলার গজালিয়া গ্রামের বাবুল কর্মকারের ছেলে।
মামলার বিবরণে জানা যায়, পিরোজপুর উপজেলার মঠবাড়িয়া থানার চরকাছারিয়া সুবোধ কুমারের মেয়ে সেতু রানিকে আসামি বাসুদেবসহ কয়েকজন অপহরণের পর বিয়ে করেন। পরবর্তীতে ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করে তারা। পরে এলাকায় এসে বসবাস করতে থাকে এবং স্বর্ণের ব্যবসা শুরু করে বাসুদেব। এক পর্যায়ে সে তার স্ত্রীকে বিভিন্ন সময়ে যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকে এবং স্ত্রীর পিতার কাছ থেকে বিভিন্ন সময়ে টাকা গ্রহণ করে। গত ২০০৬ সালের ৬ আগস্ট তিনি ৮ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে নির্যাতন করে। এতে স্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে বাগেরহাট জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
মৃতদেহ সৎকারের পর ৮ আগস্ট কচুয়া থানায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে মামলা করতে গেলে দীর্ঘদিন ঘুরিয়ে মামলা নিতে অপারগতা প্রকাশ করে পুলিশ। পরবর্তীতে একই বছর ২ সেপ্টেম্বর নিহতের পিতা সুবোধ কুমার বাগেরহাট আদালতে ৮ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি পিবিআই তদন্ত শেষে ৪ মার্চ ২০২০ সালে ৪ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত রিপোর্ট পেশ করে। আদালত ৯ জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আসামি বাসুদেব ওরফে বাপ্পি কর্মকারকে মৃত্যুদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন। এ মামলার অন্য আসামীদের অব্যাহতি দেন আদালত।
মামলায় আসামি পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহী আলম বাচ্চু এবং বাদিপক্ষে ছিলেন সরকারি কৌশলী সিদ্দিকুর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     আরও সংবাদ :