October 1, 2022, 1:49 pm

উত্তরপ্রদেশে গায়িকাকে ধর্ষণ, এফআইআরে শাসক জোটের বিধায়কের নাম

দৈনিক পদ্মা সংবাদ, আন্তর্জাতিক অনলাইন ডেস্ক।
উত্তরপ্রদেশের এক বিধায়ক বিজয় মিশ্রার নামে রবিবার (১৮ অক্টোবর) ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করলেন পেশায় সংগীত শিল্পী, বছর পঁচিশের এক যুবতী। শুধু বিধায়ক নন, ধর্ষণে অভিযুক্তদের তালিকায় বিধায়কপুত্র-সহ আর এক ব্যক্তির নামও রয়েছে। গায়িকার অভিযোগের ভিত্তিতে NISHAD (নির্বল ভারতীয় শোষিত হমরা আম দল) পার্টির ওই বিধায়ক বিজয় মিশ্র-সহ তিন জনের নামেই পুলিশ এফআইআর রুজু করে, তদন্তে হাত দিয়েছে। যে বিধায়কের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, তিনি বর্তমানে অপর একটি মামলায় জেলে রয়েছেন।
উত্তরপ্রদেশে বিজেপির জোট শরিক হল NISHAD পার্টি। নির্যাতিতা থানায় লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, গানের অনুষ্ঠানের কথা বলে তাঁকে বাড়িতে ডেকে এনেছিলেন বিধায়ক বিজয় মিশ্রা । ফাঁকা বাড়িতে তাঁকে ধর্ষণ করেন বিধায়ক। কাউকে কিছু বললে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেন বিজয়। যুবতীকে প্রথমবার ধর্ষণের এই ঘটনাটি যদিও ঘটেছিল ছ-বছর আগে, ২০১৪ সালে।
ভদোহির পুলিশ সুপার রামবদন সিং সংবাদ সংস্থাকে জানান, ওই গায়িকা অভিযোগপত্রে জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে বারাণসীর একটি হোটেলে নিয়ে গিয়েও তাঁকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছিল। নির্যাতিতার দাবি, আরও একবার বিধায়ক তাঁকে ধর্ষণ করে, ছেলে-ভাইপোকে বলেছিল ছেড়ে দিয়ে আসতে। বিধায়কের ছেলে ও ভাইপোও সে বার তাঁকে ধর্ষণ করেছিল বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে।
এই ধর্ষণের ঘটনায় মূল অভিযুক্ত, বিধায়ক বিজয় মিশ্রা অপর এক মামলায় সেপ্টেম্বর মাস থেকে জেলে রয়েছেন। জমি দখলের এক মামলায় পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে আগ্রার জেলে পাঠায়। নির্যাতিতা যুবতী জানান, বিধায়ক প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ায় তিনি এতদিন অভিযোগ জানাতে পারেননি। দিন কয়েক আগে জানতে পারেন বিধায়ক জেলে আছেন। এর পরেই অভিযোগ জানাবেন বলে সিদ্ধান্ত নেন। সেইমতো গোপীগঞ্জ থানায় রবিবার ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন।
যুবতীর দাবি, তাঁকে ধর্ষণের ভিডিয়ো ক্লিপও বিধায়কের কাছে রয়েছে। কিন্তু, উনি প্রতাপশালী হওয়ায়, থানায় অভিযোগ দায়েরের সাহস পাচ্ছিলেন না। সপ্তাহ তিনেক আগে অভিযুক্ত বিধায়ককে চিত্রকূট জেল থেকে আগ্রার কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরিত করা হয়। শুধু জমি দখল নয়, এই বাহুবলী বিধায়কের বিরুদ্ধে পুলিশের খাতায় অতীতে একাধিক অভিযোগ রয়েছে।
জমি দখলের মামলায় বিধায়কের স্ত্রী-ছেলেরও নাম রয়েছে। কৃষ্ণমোহন মিশ্রা নামে বিধায়কের এক আত্মীয় গত অগস্টে তাঁর জমি-সম্পত্তি জোর করে দখল করার অভিযোগ এনেছিলেন বিধায়ক, তাঁর স্ত্রী ও ছেলের বিরুদ্ধে। এই মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন পেয়ে জেলের বাইরে রয়েছেন বিধায়কপত্মী রামলালি মিশ্রা। আগাম জামিনের আবেদন খারিজ হওয়ায় ছেলে ফেরার। জানা গিয়েছে, মধ্যপ্রদেশ পুলিশের হাতেও গ্রেফতার হয়ে জেল খেটেছেন এই বিধায়ক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরও সংবাদ :